আমিরাতভিত্তিক সংবাদমাধ্যম খালিজ টাইমসের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, অভিযূক্ত ওই নারীকে ৩ হাজার আমিরাতি দিরহাম জরিমানা করেছেন রাস আল খাইমাহ আদালত। এ ছাড়া আদালতের দেয়া আদেশ মোতাবেক ওই নারীকে আইনজীবী ফি বাবদ আরও ১০০ দিরহাম গুণতে হবে।

আদালতের ভাষ্য অনুযায়ী, স্বামী আদালতের কাছে আর্জি জানান তার ব্যক্তিগত মুঠোফোন থেকে স্ত্রী ম্যাসেজ কপি করে অন্য কারও কাছে তা চালান করেছে। আর এটাকে তিনি ব্যক্তিগত তথ্যের গোপনীয়তার লঙ্ঘন হিসেবে অভিহিত করে আদালতের কাছে বিচার চান।

আদালত ওই মামলার একটি কপি পাবিলক প্রসিকিউটরের কাছে প্রেরণ করে বলেন, স্বামীর করা আবেদনের প্রেক্ষিতে যেন তারা ওই স্ত্রীর বিরুদ্ধে করা অভিযোগের তদন্ত করে। এ ছাড়া যাকে ওই স্ত্রী ম্যাসেজগুলো দিয়েছেন সেগুলোও পরীক্ষা করে দেখার নির্দেশ দেন।।

রাস আল খাইমাহ পুলিশ অভিযূক্ত ওই নারীকে তলব করে। পাবলিক প্রসিকিউশন আদালতকে জানায় যে, অভিযূক্ত স্ত্রী তার অপরাধ স্বীকার করেছেন। তবে তিনি তার স্বামীর বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক আছে বলে পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন। তাই তিনি ম্যাসেজগুলো পরীক্ষা করে দেখেন বলেও জানান।

প্রসিকিউশনের পক্ষ থেকে ওই নারীর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে আদালতের কাছে সুপারিশ করে। এর কারণ হিসেবে তারা দেশটির ফৌজদারি দণ্ডবিধির ৩৭৮ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, স্ত্রীর এমন কর্মকাণ্ডকে অপরাধ হিসেবে অভিহিত করে। তারই প্রেক্ষিতে আদালত এমন রায় দিলেন।

News Reporter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *